আজ: শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১ইং, ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৮ জুলাই ২০২১, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

তিনমাসে ১৫২ শতাংশ দর বৃদ্ধি: ডেল্টা লাইফের শেয়ার নিয়ে গুঞ্জন

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত বীমা খাতের কোম্পানি ডেল্টা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ার দর গত তিনমাসে বেড়েছে ৯৯.২০ টাকা বা ১৫২ শতাংশ। অস্বাভাবিক এই দর বাড়ার কারণে শেয়ারটি নিয়ে বাজারে নানা গুঞ্জন শুরু হয়েছে। বাজার বিশ্লেষকরা মনে করছেন, কারসাজির মাধ্যমে কোম্পানিটির শেয়ার দর বৃদ্ধি করা হয়েছে।

এদিকে কোম্পানিটির শেয়ার দর বৃদ্ধি ও অস্বাভাবিক লেনদেন খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি করেছে বিএসইসি।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ৯৯.২০ টাকা বা ১৫২ শতাংশ দর বাড়ায় ঝুঁকির মুখে রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। কারণ কোম্পানিটির শেয়ার দর এতো বেশি বাড়ার পেছনে কোনো কারণই নেই। অতিলোভে পড়ে আরও বেশি দরে এই শেয়ার কিনলে বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, তিন মাস আগে কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিলো ৬৫.১০ টাকা। ৯৯.২০ টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫৪.৩০ টাকায়।

কোম্পানিটির শেয়ার দর এতো বেশি বৃদ্ধি পাওয়ার পেছনে কোনো কারসাজি রয়েছে জানিয়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

তাদের মতে, ডেল্টা লাইফের শেয়ার দর এতো বেশি বাড়ার যৌক্তিক কারণ তারা দেখছেন না। কোনো না কোনো চক্র এর পেছনে কাজ করছে।

এই কোম্পানিতে বিনিয়োগ রয়েছে এমন একজন বিনিয়োগকারী সিফাত ইবনে জহির। তিনি বলেন, শুনেছি আইসিবি সম্প্রতি ডেল্টা লাইফের বিপুল পরিমাণ শেয়ার বিক্রি করেছে। এবং সেটা নিয়ম মেনে বিক্রি হয়েছে কিনা সন্দেহ রয়েছে। আমি মনে করে এই শেয়ার যারা কিনেছে তাদের উদ্দেশ্য ইতিবাচক নয়।

বৃদ্ধি পেতে পারে না। এর পেছনে রয়েছে কারসাজি। আর এই কারসাজি করছে বড় বড় বিনিয়োগকারীরা। যাদের দমন করতে পারছে না বিএসইসি। কারণ এমন অসাধু বিনিয়োগকারীরা পুঁজিবাজারকে নিজেদের কবজায় নিয়ন্ত্রণ করে। শামীম আহমেদ নামে এক বিনিয়োগকারী বলেন, ডেল্টা লাইফের শেযার দর এমন অস্বাভাবিকভাবে বাড়ার পেছনে কারসাজি রয়েছে। কারসাজির কথা নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মাঝে কানাঘুষা শোনা যায়। কেউ কেউ বলে খেলা হবে ডেল্টা লাইফ নিয়ে।

আবার কেউ বলে এখনও সময় আছে, কিছু কিনে রাখেন, না হয় পরে আফসোস করবেন। ডেল্টা লাইফ নিয়ে খেলা হবে, খবর আছে। বিমা খাতের কোম্পানির শেয়ার নিয়ে কারসাজি হচ্ছে। ডেল্টা স্পিনিং তার বাইরে নয়।

শেয়ারবাজার বিশ্লেষক হিসেবে পরিচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক অধ্যাপক আবু আহমেদ বিষয়টি নিয়ে বলেন, বীমা খাতের কিছু কিছু কোম্পানির শেয়ার দর বেড়ে ছয় গুণ নয় গুণ হয়েছে। যা কোম্পানিগুলোর বর্তমান অবস্থার সাথে সাংঘর্ষিক। তবুও কেন কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর বাড়ছে তা ভাববার বিষয়।

উল্লেখ্য, ভ্যাট ফাঁকির মামলা, প্রতিষ্ঠানটির সাবেক সিইওর পুনঃনিয়োগ না দেয়া, আইডিআরের চেয়ারম্যানের সঙ্গে বিরোধ, প্রশাসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনায় প্রশাসক পরিবর্তন এমন ঘটনার মধ্য দিয়ে চলছে প্রতিষ্ঠানটির দৈনন্দিন কার্যক্রম। এতে দীর্ঘদিন কোম্পানিটির গ্রাহক, কর্মকর্তা ও বিনিয়োগকারীদের হতাশা বিরাজ করছে।

তবে হঠাৎ করে কোম্পানির শেয়ার কেনার ধুম চলছে। এ কারণেই কারসাজির আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

উল্লখ্য, গত ২৩ জুন ডেল্টা লাইফের প্রতিটি শেয়ারের দাম ছিল ১০৩.৩ টাকা। এর মাঝে দর বেড়ে হয় আর ৩০ জুন পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫৪ টাকা ৩০ পয়সা। গতকাল বুধবার কোম্পানিটির ক্লোজিং ছিলো ১৪৪ টাকা।

১৯৯৫ সালে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটি বর্তমানে এ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করছে। কোম্পানির শেয়ারের ৩৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকদের হাতে। প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে আছে ২৩ দশমিক ১৯ শতাংশ। বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে দশমিক ৪৪ শতাংশ আর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে আছে ৩৯ দশমিক ৭৩ শতাংশ।

বর্তমানে কোম্পানিটির শেয়ার সংখ্যা ১২ কোটি ৩৭ লাখ ৫০ হাজারটি। নেই কোনো রিজার্ভ। সর্বশেষ ২০১৮ সালে কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.