আজ: রবিবার, ২২ মে ২০২২ইং, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৯শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার |



kidarkar

স্বল্প মূলধনী কোম্পানির অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধি, করনীয় নির্ধারনে বিএসইসি’র কমিটি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: স্বল্প মূলধনী বেশ কিছু কোম্পানির শেয়ার দর অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি নিয়ে করনীয় নির্ধারনে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন-বিএসইসি। আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা দিতে বলা হয়েছে

সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র বলছে, এই কোম্পানিগুলোর বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেয়া যায় সে বিষয়ে সুপারিশ করবে এই কমিটি।

জানা গেছে, গঠিত কমিটিতে রয়েছে বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ, কমিশনার অধ্যাপক মিজানুর রহমান ও অতিরিক্ত পরিচালক মো. নজরুল ইসলাম।

বিএসইসি নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র রেজাউল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে নিয়ে অনেক আগ থেকে কাজ হচ্ছে। সম্প্রতি এটির একটি নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত যেসব কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ১ কোটি টাকা থেকে ৩০ কোটি টাকার মধ্যে, সেগুলো নিয়ে কাজ করবে এই কমিটি।

৩ উত্তর “স্বল্প মূলধনী কোম্পানির অস্বাভাবিক দর বৃদ্ধি, করনীয় নির্ধারনে বিএসইসি’র কমিটি”

  • Anonymous says:

    The price of the share will increase in the secondary market. There is nothing harm in it. But worry is that if the price of the company either closed or not in operation to the full extent increases.
    What are the reasons behind the increase in the share price of companies declared under the B, N, and Z categories? Especially the Z category.
    An increase in the price of the Z category or poor companies is just passing over liability from one poor innocent investor to another one.
    There may be a cap on the increase:
    Not more than 5% in a month for Z category share.
    Sale of share after 15 days of buy.
    Share prices of small capital should not increase 20 times of annual EPS and 2 times of last NAV whichever is lower.
    The payout ratio maybe 60 percent after deduction of tax and 80 percent in care mutual fund. This might have a positive impact on dividends than capital gain and also on day-to-day trade.

  • Motin says:

    Report within a month will give some more time or Oxygen to the Opportunists. The report by a week is sufficient or enough.

  • মো: ফরহাদ হোসেন। says:

    ১) স্বল্প মুলধন যে সমস্ত শেয়ার কম্পানির তাদের রাইট শেয়ার ইস্যু করে শেয়ারর সংখ্যা বৃদ্ধি করা যেতে পারে।
    ২) এটা জেড আইটেমের মত লেনদেনে মেচুয়েড টাইম বারিয়ে দেয়া যেতে পারে।
    ৩) সপটে কেনা বেঁচার ব্যাবস্থা করা যেতে পারে যতদিন শেয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি না হবে।
    ৪) এই রকম শেয়ার কিনলে লেনদেনে কমিশন ও ভ্যাট বারানো যেতে পারে।
    ৫) স্বল্প মুলধন যে কম্পানির তাদের শেয়ার ২.০০% এর বেশি বারবে না কিন্তু ১০% বেশি পরার ব্যাবস্থা করা হলে ভাল হবে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.