আজ: শনিবার, ২১ মে ২০২২ইং, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৮ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৩ জানুয়ারী ২০২২, সোমবার |



kidarkar

ইন্দোনেশিয়ার সাথে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য আরো বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ২০২০-২১ অর্থবছরে ইন্দোনেশিয়া-বাংলাদেশ এর মধ্যে আমদানি রপ্তানি হয়েছে ১.৯ বিলিয়ন ডলার। এই দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যকে আরো বাড়ানোর বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষ করে বাংলাদেশের ওষুধ, কৃষিপণ্য, পোল্ট্রি, পাট ও চামড়াজাত পণ্য এবং জুতার বিশাল বাজার রয়েছে ইন্দোনেশিয়ায়। দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের এই সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন এফবিসিসিআই’র সভাপতি জসিম উদ্দিন।

সোমবার দুপুরে ইন্দোনেশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এয়ার ভাইস মার্শাল মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে এ আহ্বান জানান এফবিসিসিআই সভাপতি।

চীন, ভারত, জাপানের মতো, ইন্দোনেশিয়াও যাতে বাংলাদেশের একটি অর্থনৈতিক অঞ্চলের বিনিয়োগ করে সেজন্য রাষ্ট্রদূতকে উদ্যোগে নেয়ার আহ্বানও জানান তিনি।

এফবিসিসিআই কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে রাষ্ট্রদূত জানান, ইন্দোনেশিয়ার খাতভিত্তিক সংলাপ অংশীদার হতে আগ্রহী বাংলাদেশ। দেশটিতে শুল্ক ও করকাঠামো তুলনামূলক সহজ হওয়ায় বাংলাদেশী রপ্তানিকারকদের পক্ষে বাজার ধরা সহজ হবে। ইন্দোনেশিয়ান উদ্যোক্তারা বাংলাদেশে ওষুধ ও এসএমই খাতে জয়েন্ট ভেঞ্চারের মাধ্যমে বিনিয়োগে আগ্রহী। দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা যাচাই করতে চলতি বছরই দেশটির শিল্পমন্ত্রী অথবা বাণিজ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ সফরে আসবেন। এছাড়া দেশটির সঙ্গে অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি বিষয়ে আলোচনা চলছে বলে জানান রাষ্ট্রদূত মোস্তাফিজুর রহমান।

বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, সহ-সভাপতি আমিন হেলালী, পরিচালক এম.জি.আর. নাসির মজুমদার ও মহাসচিব মোহাম্মদ মাহফুজুল হক।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.