আজ: রবিবার, ২২ মে ২০২২ইং, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৯শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৯ মার্চ ২০২২, বুধবার |



kidarkar

বাংলার সমৃদ্ধির জন্য ২২.৮ মিলিয়ন বীমা দাবি শিপিং কর্পোরেশনের

শেয়ারবাজার রিপোর্ট:পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের (বিএসসি) ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজ ‘এমভি বাংলার সমৃদ্ধি’র ক্ষতি পূরণের জন্য ২২ দশমিক ৮ মিলিয়ন বিমা দাবী করেছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সাধারন বীমা কর্পোরেশন কাছে এই দাবী করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সাধারণ বিমা কর্পোরেশন ডেনিশ চার্টার ডেল্টা কর্পোরেশনের সাথে এমভি বাংলার সমৃদ্ধি’র সাথে বিমা করেছে।

নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন,”আমরা সমস্ত আন্তর্জাতিক নিয়ম-কানুন মেনে বিমা দাবি করেছি। বিমাকারী এখন প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে এবং দাবি পরিশোধ করবে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, “জাহাজটি যথাযথভাবে সব প্রক্রিয়া অনুসরণ করে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এখন এটি দেখাশোনার জন্য প্রহরী খোঁজার চেষ্টা চলছে, যদিও যুদ্ধের কারণে এই কাজের জন্য কাউকে পাওয়া কঠিন হবে।”

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের সময় ২ মার্চ ইউক্রেনের আলভিয়া বন্দর চ্যানেলে নোঙর করার সময় শিপিং কর্পোরেশনের অন্তর্গত বাংলার সমৃদ্ধি একটি রকেটের আঘাতে পড়ে। এতে আগুন ধরে যায়। তবে সবার তাৎক্ষণিক পদক্ষেপে আগুন নিভাতে সক্ষম হয়। রকেট হামলায় জাহাজের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার মোঃ হাদিসুর রহমান মৃত্যুবরণ করেন। পরে জাহাজটিকে পরিত্যাক্ত ঘোষণা করে সরকার।

ডিএসই সূত্র মতে, ওই সময়ে কোম্পানিটি জানিয়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত এই জাহাজটি বিমা নীতির অধীন রয়েছে।

২০১৮-১৮ অর্থবছরে, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন ছয়টি জাহাজ ক্রয় করেছে। এর মধ্যে তিনটি তেল ট্যাংকার এবং তিনটি বাল্ক ক্যারিয়ার। বাংলার সমৃদ্ধি একটি বাল্ক ক্যারিয়ার জাহাজ। এই ছয়টি জাহাজ কিনতে বাংলাদেশ সরকারকে ২০ বছরের জন্য ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে চীন। ২০৮ কোটি টাকায় চীন থেকে জাহাজটি ক্রয় করেছে সরকার। বাংলার সমৃদ্ধি ২০১৮ সালে সালে শিপিং কর্পোরেশনের বহরে যুক্ত হয়েছে।বর্তমানে কর্পোরেশনের বহরে আটটি জাহাজ রয়েছে। এর মধ্যে একটি পরিত্যক্ত।

২০২০-২১ অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, শিপিং কর্পোরেশনের আয়ের প্রায় ৭৮% মুনাফা করেছে সর্বশেষ যুক্ত হওয়া ছয়টি জাহাজ থেকে। বাকী ২১.৫৪% মুনাফা এসেছে লাইটারেজ সেগমেন্টে।

২০২০০২১ অর্থবছরে, বিএসসি জাহাজ পরিচালনা এবং অন্যান্য খাত থেকে ২৪৩.০৮ কোটি টাকা আয় করেছে। এর মধ্যে নিট মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৭২ কোটি কোটি টাকা।

চলতি অর্থবছরের প্রথমার্ধে এর মুনাফা ৪০০% বেড়ে ১২৬ কোটি টাকা হয়েছে। এই আয় বিএসসির ইতিহাসে সর্বোচ্চ। বৃহৎ পরিসরে আন্তর্জাতিকভাবে শিপিং ভাড়া বৃদ্ধির কারণে এটি সম্ভব হয়েছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.