আজ: রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩ইং, ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৫ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৬ নভেম্বর ২০২২, রবিবার |


kidarkar

ওয়ালটনের গোলাম মুর্শেদ ‘ইমার্জিং সিইও অফ দ্য ইয়ার’,ও ফিরোজ আলম ‘সিএমও অফ দ্য ইয়ার’


নিজস্ব প্রতিবেদক: কর্পোরেট সেক্টরে অসামান্য অবদান রাখায় ‘ইমার্জিং সিইও অফ দ্য ইয়ার’ ক্যাটাগরিতে স্বীকৃতি পেয়েছেন ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) গোলাম মুর্শেদ ও ‘সিএমও অফ দ্য ইয়ার’ ক্যাটাগরিতে স্বীকৃতি পেয়েছেন মোহাম্মদ ফিরোজ আলম ।

শনিবার (৫ নভেম্বর) ঢাকার লো মেরিডিয়ান হোটেলে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ সি-স্যুট অ্যাওয়ার্ডসে ওয়ালটন এমডি ও সিইও গোলাম মুর্শেদের হাতে বছরের সেরা উদীয়মান সিইও’র পুরস্কার ও সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা প্রশাসন ইনস্টিটিউটের (আইবিএ) পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল মোমেন।

আর মোহাম্মদ ফিরোজ আলমের হাতে বর্ষসেরা সিএমওর পুরস্কারের ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট তুলে দেন ম্যানিলার লিডারশিপ ট্রেইনার বাইওসিলিয়ন এসপিসি-এর চিফ পিপল অফিসার বেথ ম্যাকডোনাল্ডস।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ফ্ল্যাগশিপ আয়োজন লিডারশিপ সামিটের ধারাবাহিকতায় অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ সি-স্যুট অ্যাওয়ার্ডস-২০২২।

১৬টি ক্যাটাগরিতে ১৬জন কর্পোরেট এক্সিকিউটিকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। পাশাপাশি দেশের কর্পোরেট সেক্টরে অসাধারণ অবদান রাখা সিইওদের পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রায় ৩৫০ জন বিজনেস লিডার, বিশেষজ্ঞ এবং পেশাদার ব্যক্তিত্ব অংশ নেন। দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত সামিটে দেশ-বিদেশের বিশেষজ্ঞ এবং নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরা নিজেদের অভিজ্ঞতা এবং নেতৃত্বের বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন।

‘ইমার্জিং সিইও অফ দ্য ইয়ার’ স্বীকৃতি দেয়ায় বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামকে ধন্যবাদ জানান ওয়ালটন এমডি ও সিইও গোলাম মুর্শেদ। তিনি ওয়ালটন পরিবারের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এ পুরস্কার তিনি ওয়ালটন পরিবারের প্রতিটি সদস্যকে উৎসর্গ করেন।

গোলাম মুর্শেদ বলেন, “বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত এমন একটি অনুষ্ঠানে সম্মাননা গ্রহণ করা মর্যাদাপূর্ণ এবং ওয়ালটন পরিবারের জন্য গর্বের। ১২ বছরের পথচলায় ওয়ালটন পরিচালনা পর্ষদের সমর্থন এবং এ পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে যে অকৃত্রিম ভালোবাসা পেয়েছি, এ পুরস্কার প্রাপ্তি তারই নিদর্শন। নিঃসন্দেহে এ স্বীকৃতি আমাদের আগামি দিনগুলোতে উৎসাহ যোগাবে”।

বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর শরিফুল ইসলাম বলেন, “বাংলাদেশের পরবর্তী পর্যায়ের লিডারশিপকে সুদৃঢ় করার লক্ষ্য অর্জনের জন্য এই পুরস্কার প্রদান কাজ করবে। পাশাপাশি এই আয়োজন দেশের সি লেভেল ব্যক্তিদের সম্মাননা প্রদান এবং তাদের অভিজ্ঞতাকে তুলে ধরবে”।

জানা গেছে, ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অফ টেকনোলজি (আইইউটি) থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এ স্নাতক গোলাম মুর্শেদ ২০১০ সালে ওয়ালটনের সহকারী প্রকৌশলী পদে যোগ দেন। দীর্ঘ এক যুগ ধরে তিনি ওয়ালটনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছেন। মেধা ও কঠোর পরিশ্রমে তিনি রেফ্রিজারেটরের ম্যানুফ্যাকচারিং অপারেশনের দায়িত্ব এবং পরবর্তীতে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে পদোন্নতি পান। স্বল্প সময়ের জন্য ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি.এর অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এএমডি) হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর ২০২০ সালের ৮ অক্টোবর প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ গোলাম মুর্শেদকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও হিসেবে নিয়োগ দেয়। তার নেতৃত্বে ২০৩০ সালের মধ্যে অন্যতম শীর্ষ গ্লোবাল ব্র্যান্ডে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে ওয়ালটন।

অন্যদিকে, মোহাম্মদ ফিরোজ আলম ২০০৭ সালে ওয়ালটন গ্রুপে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ হিসেবে যোগ দেন। দীর্ঘ ১৫ বছরের পথচলায় তিনি ওয়ালটনের মার্কেটিং, ব্র্যান্ডিং, পিআর অ্যান্ড কমিউনিকেশন্স এবং ক্রিকেট ব্র্যান্ডিংয়ের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছেন। একজন চৌকষ ব্র্যান্ড মার্কেটার হিসেবে তার ব্যাপক সুনাম রয়েছে।

বাংলাদেশ সি-স্যুট অ্যাওয়ার্ডসপ্রাপ্ত অন্যান্য বিজনেস ও করপোরেট ব্যক্তিত্বদের মধ্যে রয়েছেন- বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর রূপালী হক চৌধুরী, (এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড), ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শেহজাদ মুনিম (এমডি অফ দ্য ইয়ার), ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজিং ডিরেক্টর তামারা হাসান আবেদ (এমডি অফ দ্য ইয়ার), প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সিইও আহসান খান চৌধুরী (এন্টারপ্রেনার অফ দ্য ইয়ার), বিকাশ লিমিটেডের চিফ প্রোডাক্ট অ্যান্ড টেকনোলজি অফিসার আজমল হুদা (টেকনোলজি ডিরেক্টর অফ দ্য ইয়ার), মিরপুর সিরামিক ওয়ার্কস লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর আসিফ আরিফ তাবানি (এমডি অফ দ্য ইয়ার), ফুডপান্ডা বাংলাদেশ লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও কো-ফাউন্ডার সৈয়দা আম্বারিন রেজা (এমডি অফ দ্য ইয়ার), নগদের চিফ বিজনেস অফিসার শেখ আমিনুর রহমান (বিজনেস ডিরেক্টর অফ দ্য ইয়ার), বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনসের চিফ কর্পোরেট ও রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তৈমুর রহমান (চিফ কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার), নেসলে বাংলাদেশ লিমিটেডের সেলস ডিরেক্টর সৈয়দ ইকবাল মাহমুদ হোসেন (চিফ সেলস অফিসার অফ দ্য ইয়ার), গ্রামীণফোন লিমিটেডের চিফ ডিজিটাল স্ট্র্যাটেজি অফিসার সোলায়মান আলম (ডিজিটাল ডিরেক্টর অফ দ্য ইয়ার), গ্রামীণফোন লিমিটেডের চিফ হিউম্যান রিসোর্সেস অফিসার সৈয়দ তানভীর হোসেন (হিউম্যান রিসোর্সেস ডিরেক্টর অফ দ্য ইয়ার), আকিজ বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালসের অপারেশন ডিরেক্টর মোহাম্মদ খুরশেদ আলম (অপারেশন্স ডিরেক্টর অফ দ্য ইয়ার) ও ইউনিলিভার বাংলাদেশের সিএফও এবং ফিন্যান্স ডিরেক্টর জাহিদ মালিতা (ফিন্যান্স ডিরেক্টর অফ দ্য ইয়ার)।


আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.