আজ: রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৫ নভেম্বর ২০১৫, রবিবার |

kidarkar

ধূমপায়ীরা ফুসফুস পরিষ্কার রাখবেন যেভাবে!

fus fusশেয়ারবাজার ডেস্ক: ধূমপানের কারণে ফুসফুসে বিষাক্ত পদার্থ জমা হয়। এবং ফুসফুসকে ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্তও করে। এর ফলে  ফুসফুসে ক্যানসারও হতে পারে। তবে সম্প্রতি একটি গবেষণায় বলা হয়, কিছু বিষয় রয়েছে যা ধূমপায়ীদের ফুসফুস পরিষ্কারে সাহায্য করবে। এই পদ্ধতিগুলো মেনে চললে খুব সহজেই ধূমপায়ীরা ফুসফুস পরিষ্কার করতে পারবেন।

গ্রিন টি
গ্রিন টি খুব উপকারী সবার ক্ষেত্রেই। এই শক্তিশালী চা অন্ত্রের বিষাক্ত পদার্থ দূর করে। এই বিষাক্ত পদার্থই আমাদের কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য দায়ী।এ ছাড়া প্রতিদিন গ্রিন টি পান ফুসফুসকে পরিষ্কার করে।

আদা
ঠান্ডায় নাক বন্ধ হওয়া রোধে ঘরোয়া দাওয়াই হলো আদা। তবে ধূমপায়ীদেরও ফুসফুস পরিষ্কার করতে পারে আদা। প্রতিদিন এক টুকরো আদা চিবুলে শ্বাসতন্ত্র ও ফুসফুস থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর হয়ে যায়।

গাজরের জুস
ফুসফুসকে পরিষ্কার করতে গাজরের জুস পান বেশ সাহায্য করে। প্রতিদিন দুই বেলা এই জুস খেলে ফুসফুস পরিষ্কার থাকে।

আনারস
খাদ্যতালিকায় অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার রাখুন। এ দুটি উপাদান প্রাকৃতিকভাবেই ফুসফুস পরিষ্কার করে। তাই আনারসের জুস এবং ক্র্যানবেরির জুস নিয়মিত খাদ্যতালিকায় রাখুন। এসব ফলের জুসেই প্রচুর পরিমাণে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ভিটামিন সি।

লেবুর শরবত
লেবুর শরবত প্রতিদিন খেলে ফুসফুস শক্তিশালী হয় এবং বিষাক্ত পদার্থ দূর হয়।

যোগব্যায়াম
গভীর শ্বাস প্রশ্বাসের ব্যায়াম করলে শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের হয়ে যায়। নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে ফুসফুস শক্তিশালী হয় এবং প্রাকৃতিকভাবে ফুসফুস পরিষ্কার হয়। দুগ্ধ জাতীয় খাবারে না।

পুদিনা পাতা

ফুসফুস পরিষ্কারের জন্য খাদ্য তালিকায় পুদিনা পাতা রাখুন।পুদিনা পাতায় যে উপাদান রয়েছে তা ফুসফুসের যেকোনো সংক্রমণের সাথে লড়াই করে।

ফুসফুস পরিষ্কার রাখতে হলে দুগ্ধজাতীয় খাবার বাদ দিতে হবে। কারণ দুধ জাতীয় খাবার পরিষ্কার প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে।
তবে ফুসফুসকে পরিষ্কার করতে ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার ভাল।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/তু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.