আজ: বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১ইং, ৩০শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৪ মার্চ ২০১৫, বুধবার |


ন্যাশনাল আইডি হালনাগাদ করবেন যেভাবে

ID-Card-Picশেয়ারবাজার রিপোর্ট: ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেছে কিংবা নতুন আইডি কার্ডে ভুল পাওয়া গেছে। তা সংশোধন করা প্রয়োজন! আর এ বিষয়ে ভোগান্তির কোনো শেষ নেই। আইডি সংশেধনের পেছনে অনেকে দিনের পর দিন পার করেন।  কিন্তু এবার শেষ হলো এসব ভোগান্তির দিন! কারণ এখন  অনলাইনেই পাওয়া যাচ্ছে জাতীয় পরিচয়পত্র এবং ভোটার সংক্রান্ত তথ্যের সেবা । এবার অপনাদের জানাবো যেভাবে করতে হবে ন্যাশনাল আইডি হালনাগাদ।

জাতীয় পরিচয় পত্র হালনাগাদের জন্য বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন চালু করেছে জাতীয় পরিচয়পত্রের সম্পাদনার জন্য নিজস্ব ওয়েব পোর্টাল। যেখানে সহজেই ঘরে বসে নতুন জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি কিংবা জাতীয় পরিচয়পত্র সম্পাদনা করা যাবে।
প্রথমেই এই https://services.nidw.gov.bd/registration ঠিকানায় গিয়ে নিজের তথ্য দেখতে এবং হালনাগাদ করতে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। আগের নিয়মের মতো গুগলক্রোম কিংবা ফায়ারফক্স ব্রাউজারে গিয়ে Security Exception অপশন সিলেক্ট করে দিলেই মূল রেজিস্ট্রেশন সাইট ওপেন হবে। সেখানে `রেজিস্ট্রেশন ফরম পূরণ করতে চাই` অপশনে ক্লিক করতে হবে।

এবার নতুন একটি পেজে জাতীয় পরিচয়পত্রের হালনাগাদ ফরম আসবে। সেখানে প্রথমে জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর, জন্ম তারিখ, মোবাইল নম্বর কিংবা ই-মেইল ঠিকানায় গিয়ে সামনে অগ্রসর হতে হবে। এ পর্যায়ে বর্তমান ঠিকানার স্থানে পুরনো জাতীয় পরিচয়পত্রের ঠিকানা অনুযায়ী বিভাগ, জেলা এবং থানা সিলেক্ট করতে হবে। এরপর স্থায়ী ঠিকানা ট্যাবে গিয়ে একইভাবে ঠিকানা দিতে হবে।

সবশেষে লগইন পাসওয়ার্ড অপশনে বিশেষ চিহ্ন, বড় ও ছোট হাতের অক্ষর এবং সংখ্যার সমন্বয়ে একটি পাসওয়ার্ড দিতে হবে। তবে পাসওয়ার্ডটি অবশ্যই কমপক্ষে ৮ সংখ্যার হতে হবে। এ পর্যায়ে `ক্যাচ কোড` নামে একটি বিশেষ কোড নম্বর দেখা যাবে। পাশের ফাঁকা ঘরে তা সঠিকভাবে শনাক্ত করে লিখে `রেজিস্ট্রেশন` বাটনে চাপতে হবে। এরপর কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতেই নতুন একটি পেজ ওপেন হবে এবং মোবাইলে একটি গোপন কোড নম্বর আসবে, যা পেজটির ফাঁকা ঘরে প্রবেশ করালেই রেজিস্ট্রেশন সফলভাবে সম্পন্ন হবে।

তবে যদি কোড নম্বর না আসে, তবে `পুনরায় কোড পাঠান` অপশনে ক্লিক করে মোবাইল ফোনে কোডের জন্য আবেদন করতে হবে। এবার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর, জন্ম তারিখ, মোবাইল নম্বর এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে `সামনে` অপশনে প্রবেশ করতে হবে। এরপর মোবাইল ফোনে গোপন কোড এলে তা প্রবেশ করিয়ে `লগইন` বাটনে চাপতে হবে। তাহলেই জাতীয় পরিচয়পত্রের ডাটা বেজ ওপেন হবে। সেখানে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রয়োজনে সংযোজন- বিয়োজন করে ইচ্ছেমতো তথ্য সম্পাদনা করা যাবে। সবশেষে সম্পাদনাকৃত তথ্য সেভ করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ তা নিকটস্থ নির্বাচন অফিসে জমা দিতে হবে।

 

শেয়ারবাজার/অ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.