আজ: সোমবার, ১০ মে ২০২১ইং, ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৬শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৮ এপ্রিল ২০১৫, শনিবার |


সাপ্তাহিক বাজার: বেড়েছে সূচক ও লেনদেন

price_upশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের উভয় শেয়ারবাজারে গত সপ্তাহে লেনদেন হওয়া চার কার্যদিবসে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে লেনদেন। বিদায়ী সপ্তাহে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কিছুটা স্থিতিশীল হয়েছে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি। আর এ স্থিতিশীলতার হাওয়া পুঁজিবাজারে লেগেছে। লেনদেনে পরিবর্তনের এ ধারা অব্যাহত থাকলে দেশের শেয়ারবাজার আবার স্থিতিশীলতার দিকে যাবে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সপ্তাহশেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স অবস্থান করে ৪৩৭৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই-৩০ সূচক করে ১৬৬৮.৩৫ পয়েন্টে এবং শরিয়াহ সূচক অবস্থান করছে ১০৬০.৮৮ পয়েন্টে। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স অবস্থান করে ৪৩৪৫ পয়েন্টে, ডিএসই-৩০ সূচক ১৬৭১.১৭ পয়েন্টে এবং শরিয়াহ সূচক অবস্থান করে ১০৬৫.৬৮ পয়েন্টে। সে হিসেবে আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স বেড়েছে ০.৬৩ শতাংশ বা ২৭.৪৫ পয়েন্ট, ডিএসই-৩০ সূচক কমেছে ০.১৭ শতাংশ বা ২.৮৩ পয়েন্ট এবং শরিয়াহ সূচক কমেছে ০.৪৫ শতাংশ বা ৪.৮০ পয়েন্ট।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন করা মোট ৩২৩টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৯৫টির, কমেছে ৯৯টির, অপরিবর্তীত রয়েছে ২৪টি এবং লেনদেন হয়নি ৫টি কোম্পানির। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭১০ কোটি ৩ লাখ ১ হাজার ৮৩৮টাকা।

আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৮১ কোটি ৫৪ লাখ ২৪ হাজার ৭৩২টাকা। সে হিসেবে আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ২৮ কোটি ৪৮ লাখ ৭৭ হাজার ১০৬টাকা বা ১.৬৯ শতাংশ।

এদিকে সপ্তাহশেষে সিএসইর সাধারণ মূল্য সূচক ১.২৫ শতাংশ বেড়ে অবস্থান করছে ৮১৯২ পয়েন্ট। সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে লেনদন করা মোট ২৬৬টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৯টির, কমেছে ৪৪টির এবংঅপরিবর্তীত রয়েছে ১৯টির কোম্পানির শেয়ার দর। যা টাকার অংকে লেনদেন হয়েছে ১৪৪ কোটি ৪২ লাখ ৯৩ হাজার ৯২৮ টাকা। এর আগের সপ্তাহে সিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ১৬০ কোটি ৫৭ লাখ ৯৪ হাজার ৩৪৯টাকা।

শেয়ারবাজার/অ

 

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.