আজ: বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ইং, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৪ অক্টোবর ২০১৭, শনিবার |



kidarkar

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হস্তক্ষেপে সূচকে বড় পতন

bazarশেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের প্রধান সাপ্তাহিক ব্যবধানে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে(ডিএসই) সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতা বিরাজ করছে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসের মধ্যে ৩ দিনই নিম্নমুখী ধারায় ছিল সূচক। তাই গত সপ্তাহে (৮-১২ অক্টোবর) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সব ধরনের সূচক কমেছে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসে ডিএসইর প্রধান সূচক কমেছে প্রায় ১৩৮ পয়েন্ট। এদিকে সূচকের পাশাপাশি ৭৩.২৯ শতাংশ কোম্পানির শেয়ার দর কমেছে। তবে গত সপ্তাহে টাকার অংকে গড় লেনদেনের পরিমান বেড়েছে। আলোচিত সপ্তাহটিতে মোট লেনদেন বেড়েছে ২৫.৯৫ শতাংশ।

এ প্রসঙ্গে একাধিক মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারেজ হাউজের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সম্প্রতি শেয়ারবাজারে নির্ধারিত সীমার অতিরিক্ত বিনিয়োগ অব্যাহত রাখায় সরকারি-বেসরকারি খাতের ৭ ব্যাংককে বড় অঙ্কের জরিমানা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বেশির ভাগ ব্যাংককেই ১৭ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার টাকা পত্র দেওয়ার ১৪ দিনের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল অফিসের ‘সাধারণ হিসাব-প্রধান কার্যালয়’ খাতে জমা দিতে বলা হয়েছে। ব্যাংক কোম্পানি আইনের ১০৯ (১১) ধারা অনুযায়ী এ জরিমানা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এছাড়া একই চিঠিতে ব্যাংকগুলোকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, শেয়ারবাজারে বিনিয়োগসীমার মধ্যে না আনলে জরিমানা অব্যাহত রাখা হবে।বাংলাদেশ ব্যাংকের তদন্তে আরও বেরিয়ে এসেছে, জরিমানা করা ৭ ব্যাংকের বাইরে আরও ৮ ব্যাংক একইভাবে সীমার ওপরে বিনিয়োগ করেছে। তাদেরও শিগগির জরিমানার আওতায় আনা হবে। এ ছাড়া আরও ৬ ব্যাংকের অতিরিক্ত বিনিয়োগ নিয়ে তদন্ত চলছে। আর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এমন কড়া নজরদারিতে সূচক কমছে বলে ধারণা করছেন তারা।

সাপ্তাহিক বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সপ্তাহশেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স বা ডিএসইএক্স সূচক কমেছে ২.২২ শতাংশ বা ১৩৭.৯০ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই৩০ সূচক কমেছে ০.১৮ শতাংশ বা ৩.৯৭ পয়েন্ট। অপরদিকে, শরীয়াহ বা ডিএসইএস সূচক কমেছে ১.২০ শতাংশ বা ১৬.২৪ পয়েন্টে। আর সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ৩৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭২টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ২৪৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৫টির। আর লেনদেন হয়নি ৩টি কোম্পানির শেয়ার।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে ৫ কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে। এতে মোট ৪ হাজার ৬২২ কোটি ৫৩ লাখ ৩০ হাজার ৫৪৩ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের সপ্তাহ থেকে ৯৫২ কোটি ৪৫ লাখ ৬৩ হাজার ৭১৫ টাকা বেশি। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিলো ৩ হাজার ৬৭০ কোটি ৭ লাখ ৬৬ হাজার ৮২৮ টাকা। ডিএসইতে বিদায়ী সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছে ৯২৪ কোটি ৫০ লাখ ৬৬ হাজার ১০৮ টাকা। এর আগের সপ্তাহে ৪ কার্যদিবসে ডিএসইতে গড় লেনদেন হয়েছিলো ৯১৭ কোটি ৫১ লাখ ৯১ হাজার ৭০৭ টাকা। আর সমাপ্ত সপ্তাহে ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৯০.৭৩ শতাংশ। ‘বি’ ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন হয়েছে ৩.০৬ শতাংশ। ‘এন’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৪.৯০ শতাংশ। ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ১.৩২ শতাংশ।

অন্যদিকে সপ্তাহশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএসইএক্স ২৯১ পয়েন্ট বা ২.৪৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১১ হাজার ৩৭৭ পয়েন্টে। গত সপ্তাহে সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৩৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৫৪টির, কমেছে ২১৮র এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৪টির। আর এ গুলোর ওপর ভর করে বিদায়ী সপ্তাহে ২৩২ কোটি ৪৫ লাখ ৭৮ হাজার ৪০১ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের সপ্তাহ থেকে ২৭ কোটি ২৮ লাখ ৯ হাজার ৬০২ টাকা বেশি। আগের সপ্তাহে সিএসইতে লেনদেন হয়েছিলো ২০৫ কোটি ১৭ লাখ ৬৮ হাজার ৭৮১ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.