নির্ধারিত সময়ে হিসাব দিতে পারছে না জীবন বীমা

biaশেয়ারবাজার রিপোর্ট : চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার দোহাই দিয়ে চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারির মধ্যে বাৎসরিক রিনিউয়াল বীমা পলিসির প্রিমিয়াম হিসাব জমা দেওয়ার সময়সীমা সম্পন্ন করতে পারছে না জীবন বীমা কোম্পানিগুলো। তাই এ সময়সীমা বাড়ানোর জন্য আইডিআরএ’র কাছে আবেদন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বীমা কোম্পানিগুলোর মালিক পক্ষের সংগঠন বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশন (বিআইএ)।

এ বিষয়ে বিআইএ’র সহ-সভাপতি ও সন্ধানি লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহসানুল ইসলাম টিটু শেয়ারবাজারনিউজ ডট কমকে বলেন, ‘চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় ব্যবসা বাণিজ্যে অচলবস্থা চলছে।এ কারণে আমরা নির্ধারিত সময়ে বাৎসরিক রিনিউয়াল বীমা পলিসির প্রিমিয়াম হিসাব সম্পন্ন করতে পারছি না।তাই আইডিআরএ এর কাছে আমরা আপাতত এ সময়সীমা বাড়ানোর জন্য মৌখিকভাবে আবেদন করেছি।’

এর আগে ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে জীবন বীমায় বাৎসরিক হিসাব তৈরিতে চলমান দুর্নীতি বন্ধে আইডিআরএ ১৭টি ছক নির্ধারণ করে দেয়। নির্ধারিত ছক মেনে চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারির মধ্যে সমাপ্ত বছরের বার্ষিক হিসাব জমা দেওয়ার জন্য আইডিআরএ জীবন বীমা কোম্পানিগুলোকে নির্দেশ দেয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, দেশে ব্যবসারত সকল জীবন বীমা কোম্পানিকে নির্ধারিত ছকে সমাপ্ত বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ের হিসাব প্রতিবেদন তৈরি করতে হবে। হিসাবের এ প্রতিবেদন ৩১ জানুয়ারির মধ্যে আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের কাছে পাঠাতে হবে।

এর জন্য ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের ১ তারিখ থেকে ৫ তারিখের মধ্যে জীবন বীমা কোম্পানি কর্তৃপক্ষের সাথে আইডিআরএ’র জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হবে।

পাশাপাশি আইডিআরএ থেকে কোম্পানিগুলোকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, ‘নির্ধারিত ছক অনুযায়ী হিসাব তৈরি করতে ব্যর্থ হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আইডিআরএ সূত্রে জানা যায়, এ হিসাব প্রতিবেদনে কোনো ধরনের গরমিল পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট কোম্পানির বিরুদ্ধে আইনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। ব্যবস্থার অংশ হিসেবে গড়মিল করা কোম্পানি ও কোম্পানির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ১৫ থেকে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হতে পারে।

হিসাব প্রতিবেদনে আইডিআরএ নির্ধারিত ১৭টি ছকের মধ্যে রয়েছে: প্রথম বর্ষ ব্যবসা, কমিশন প্রদান, উন্নয়ন কর্মকর্তাদের বেতন, প্রশাসনিক ও অন্য খরচ, নবায়ন প্রিমিয়াম, নবায়ন কমিশন, মোট ব্যবস্থাপনা খরচ, বিনিয়োগ, জীবন বীমা তহবিল, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ পর্যন্ত ব্যাংক জমা, ব্যাংক ব্যালেন্স ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ পর্যন্ত, ক্যাশ ব্যালেন্স ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ পর্যন্ত, এজেন্ট ব্যালেন্স ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ পর্যন্ত, নবায়ন বকেয়া প্রিমিয়াম ব্যালেন্স (১ মাস গ্রেস পিরিয়ড), কালেকশন ইন হ্যান্ড, আউটস্ট্যান্ডিং প্রিমিয়াম এবং অন্যান্য ব্যাখ্যার সংযুক্তি।

আইডিআরএ সূত্রে জানা যায়, প্রথম বছর পিলিসির প্রিমিয়াম হিসাবসহ অন্য নির্ধারিত তথ্যাদি জমা দেওয়ার জন্য চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি এবং রিনিউয়াল বীমা পলিসির প্রিমিয়াম হিসাব জমা দেওয়ার জন্য একই বছরের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় বেধে দেওয়া হয়। এর মধ্যে কোম্পানিগুলো নির্ধারিত ৫ জানুয়ারি সময়ের মধ্যে প্রথম বর্ষ পলিসির প্রিমিয়াম হিসাবসহ অন্য হিসাব জমা দেওয়ার সময়সীমা শেষ হয়। কিন্তু নবায়ন পলিসির প্রিমিয়াম হিসাব জমা দেওয়ার সময়সীমা বাড়ানোর জন্য কোম্পানিগুলোর সংগঠন বিআইএ আইডিআরএ’র কাছে মৌখিকভাবে প্রস্তাব করে।

এ বিষয়ে আইডিআরএ’র জীবন বীমার দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্য সুলতান উল আবেদিন মোল্লা শেয়ারবাজার নিউজ ডটকমকে বলেন, ‘বিআইএ এর প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে আমরা তাদের লিখিতভাবে সময়সীমা বাড়ানোর জন্য আবেদন করতে বলেছি। তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে সময়সীমা ৫ কার্যদিবস বাড়ানো হতে পারে। অবশ্য সময়সীমা বাড়ানো হলে নির্ধারিত শুনানির সময় পুন:নির্ধারণ করা হতে পারে।

তিনি আরও বলেন, ‘আইডিআরএ গঠনের আগে নবায়ন প্রিমিয়ামের হিসাব সম্পন্ন করতে কোম্পানিগুলো অনেক সময় ব্যয় করতো। এতে বীমার হিসাব তৈরির স্বচ্ছতা নিয়ে সংশয় তৈরি হতো। কিন্তু আইডিআরএ গঠনের পর আমরা নবায়ন প্রিমিয়ামের হিসাব সময়মতো সম্পন্ন করার জন্য বারবার তাগাদা দিয়ে এসেছি। পাশাপাশি কোম্পানিগুলোর জবাবদিহীতা নিশ্চিত করার জন্য শুনানিরও আহবান করেছি। এতে জীবন বীমার আর্থিক হিসাবের অস্বচ্ছতা দূর হবে বলে আশা করা যায়।’

শেয়ারবাজার/তু/অ

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top