দুপুরে ভরা পেট খেয়ও স্লিম থাকার উপায়

73fd468df2e68452774c6fe65e919258-23শেয়ারবাজার ডেস্ক: ওজন নিয়ে অনেকেই ভুক্তবগি।ওজনটা একটু কমানোর জন্য বা নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য অনেকেই দুপুরে ভাত খাওয়াটা ছেড়ে দেন। ভাতে-মাছে বাঙালির পক্ষে অবশ্য দিনে একবেলা ভাত খেয়ে থাকাটা খুবই কষ্টকর। ভাত খাওয়া ছেড়ে দিলে লাভটা তো কিছুই হয় না, বরং মনটা খাই খাই করতে থাকে। ফলে অনেকে এটা সেটা হাবিজাবি খেয়ে থাকেন। যার ফলাফল কিছুই হই না বরং ওজন আর নিয়ন্ত্রণে থাকে না। তবে কিছু উপায় প্রয়োগ করে দুপুরে পেটভরে ভাত খেয়েও ওজন নিয়ন্ত্রন এবং স্লিম ও সুন্দর থাকা যায়।অতত্রব ওজন নিয়ন্ত্রন রাখার জন্য মনে রাখুন কিছু টিপস।

ভাতের সাথে কাঁচা সবজির সালাদ: যেটুকু ভাত খাবেন, ঠিক সম পরিমাণ কাঁচা সবজির সালাদ খাবেন। অর্থাৎ, আপনি যদি এক কাপ ভাত খান, তাহলে অবশ্য এক কাপ সালাদ খাবেন। খেতেই হবে। এই সালাদে থাকতে পারে শসা, টমেটো, বাঁধাকপি, গাজর ইত্যাদি। খুব সামান্য লবণ, কোন তেল দেবেন না।

ভাতের সাথে ডাল: ভাতের সাথে ডাল খাবেন। মাছ বা মাংস যে কোন একটা খাবেন। সালাদ, ডাল ইত্যাদি আপনার ভাত খাওয়ার পরিমাণ এমনই থেকেই কমিয়ে দেবে ও বেশি যেন খেয়ে না ফেলেন সেটা নিয়ন্ত্রণ করবে।

প্লেটে খাবার পরিমাণ: ভাত খেতে শুরু করার আগে প্লেটে খাবার মেপে নেবেন। যেটুকু খাবার নেবেন ঠিক সেটুকুই খাবেন। বারবার প্লেটে খাবার তুলবেন না।

খাবার আগে গোসল সেরে নেবেন: অনেকেই খেয়ে তারপর গোসল করেন দুপুরে। এই কাজটি মোটেও করবেন না। এতে মেটাবোলিজম হার কমে যায় এবং খাবার হজম হয় না। ওজন বাড়ে দ্রুত।

খাবারের পরে ঘুমাবেন না: ভাত খাওয়ার পর ঘুমাবেন না মোটেও। একেবারেই এ কাজ করবেন না।এমনকিএক জায়গায় বসেও থাকবেন না। ভাত খাবার আধা ঘণ্টা পর ২০ থেকে ৩০ মিনিট হাঁটাহাঁটি করে নিন।

খাবারের পর চা বা কফির অভ্যাস ত্যাগ: ভাত খেয়ে ওঠার পরপরই চা বা কফি পানের অভ্যাস থাকে অনেকের। এই অভ্যাসটিও ত্যাগ করতে হবে।

কুকারে রান্না করা ভাত বাদ দিতে হবে: রাইস কুকারে রান্না করা ভাত বা বসা ভাত খাবেন না মোটেও।ভাতের সাথে কোন আলু ভর্তা বা আলুর তরকারি খাবেন না।

ভাতে কোন বাড়তি তেল নেই, বরং ভাত বেশ স্বাস্থ্যকর একটি খাবার। আপনি যদি উপরে বর্ণিত নিয়ম মেনে ভাত খান তাহলে পেট ভরবে, মন ভরবে কিন্তু ওজন বাড়বে না মোটেও। বরং ওজন কমবে যদি এর সাথেই নিয়মিত এক ঘণ্টা করে ব্যায়াম চালিয়ে যেতে পারেন।

শেয়ারবাজার/রা

 

 

আপনার মন্তব্য

Top