হৃৎপিণ্ড ভালো রাখবে চীনাবাদাম

peaশেয়ারবাজার ডেস্ক: হৃৎপিণ্ড শরীরের একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। হৃৎপিণ্ডের কাজ সারা দেহে রক্ত সঞ্চালন করা। হৃৎপিণ্ডকে গ্রিক ভাষায় বলে কারডিয়া (ঈথড়নমথ) আর ল্যাটিন ভাষায় কর (ঈসড়)। কর থেকেই করোনারি শব্দের উৎপত্তি। করোনারি মানে হৃৎপিণ্ড। হৃৎপিণ্ডকে ইংরেজিতে বলে হার্ট আর সাহিত্যের ভাষায় হৃদয় বা অন্তর।

হৃৎপিণ্ড কোনাকৃতির, লালচে মাংসল অঙ্গ। বুকের বাঁ দিকে এবং দুই ফুসফুসের মধ্যে এর অবস্থান। বাঁ বগলের গোড়া থেকে তিন বা চার ইঞ্চি দূরে হৃৎপিণ্ডের মাথা অবস্থিত। হৃৎপিণ্ড যকৃতের বাঁ দিকের কিছু অংশ স্পর্শ করেছে। পুরো হৃৎপিণ্ডের দুই-তৃতীয়াংশ বাঁ দিকে আর এক-তৃতীয়াংশ রয়েছে ডান দিকে। কারও হৃৎপিন্ড যদি ভালো না থাকে তাহলে তার প্রভাব সমগ্র শরীরের উপরে পড়ে। অনেকের মৃত্যুরবরণের কারণও হয়ে থাকে দুর্বল হৃৎপিন্ডের জন্য। সম্প্রতি একটি গবেষণায় দেখা গেছে, উচ্চমাত্রায় চর্বী জাতীয় খাবারের সাথে যদি চীনাবাদাম যুক্ত করে খাওয়া হয় তাহলে ওই চর্বী জাতীয় খাবারের নেতিবাচক প্রভাব শরীরের উপর পড়ে না।
একটি গবেষণায় বলা হয়েছিল, যারা সপ্তাহে অন্তত দু’বার চীনাবাদাম খায় তাদের হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম।

গবেষণায় ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে, চীনাবাদামের উপকারিতা হয়ত একটু দেরিতে পাওয়া যেতে পারে। এটি শরীরের শিরা-উপশিরার রক্ত চলাচলের ক্ষেত্রেও ইতিবাচক ভূমিকা রাখে।

সম্প্রতি এই গবেষণার ফলাফল বোস্টনের একটি বৈজ্ঞানিক সেশনে উপস্থাপন করা হয়েছিল। সেখানে বলা হয়েছে, ‘হাই ফ্যাট ও নিউট্রিয়েন্ট পোর ফুডস’ এর বিকল্প হিসেবে চীনাবাদাম খাওয়া যেতে পারে। এই গবেষণার উদ্দেশ্য ছিল উচ্চমাত্রার চর্বী জাতীয় খাবার খাওয়ার পর হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া কেমন হয় তা দেখা।

শেয়ারবাজার/মু

 

আপনার মন্তব্য

Top