আজ: শনিবার, ২১ মে ২০২২ইং, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৮ই শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২০ মার্চ ২০২২, রবিবার |



kidarkar

বাংলার সম্মৃদ্ধির জন্য ২০০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চায় বিএসসি

শেয়ারবাজার ডেস্ক : ইউক্রেনে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশি জাহাজ বাংলার সমৃদ্ধির জন্য বিমা কোম্পানির কাছে ২ কোটি ২৪ লাখ মার্কিন ডলার বা প্রায় ১৯২ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়েছে বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন (বিএসসি)। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ সংক্রান্ত এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

ইউক্রেনে অলভিয়া বন্দরে আটকে থাকা এমভি বাংলার সমৃদ্ধি জাহাজে গত ২ মার্চ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনা ঘটে। এতে নিহত হন জাহাজটির তৃতীয় প্রকৌশলী হাদিসুর রহমান।

রয়টার্স জানায়, যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর ইউক্রেনের সমুদ্রসীমায় পণ্যবাহী জাহাজের জন্য বিমার প্রিমিয়াম ১০০ শতাংশের বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। বিমা পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানগুলো এটা আরও বাড়িয়ে নেওয়ার জন্য গভীর পর্যবেক্ষণে আছে। যা শেষ পর্যন্ত বাস্তবায়িত হলে এই খরচ আরও বাড়িয়ে দেবে।

বিএসসি জানায়, জাহাজটির যুদ্ধকালীন ঝুঁকি এড়াতে সংস্থাটির মাধ্যমে বিমা করা হয়েছিল। যা পরে লন্ডনের লয়েডের ব্রোকার টাইজারসের মাধ্যমে পুনঃ বিমাও করা হয়েছিল। জাহাজটির বিমার যে সীমা নির্ধারণ করা হয়েছিল তাতে সাধারণ বিমার আওতায় ছিল ১০ শতাংশ এবং বাকি ৯০ শতাংশ ছিল টাইজারসের আওতায়। অবশ্য যোগাযোগ করেও টাইজারসের পক্ষ থেকে বিমা–সম্পর্কিত কোনো মন্তব্য পায়নি রয়টার্স।

বিমা দাবির নিষ্পত্তি হতে বেশ কিছুটা সময় লাগবে বলে রয়টার্সকে জানিয়েছে বিএসসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুমন মাহমুদ। তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের স্বার্থ বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করছি।’

বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি সরকারি সংস্থা। এই সংস্থার সাধারণ পণ্যবাহী জাহাজ বাংলার সমৃদ্ধি ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরে পৌঁছায় গত ২৪ ফেব্রুয়ারি। ওই দিন ভোরেই রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা শুরু করে। হামলার সপ্তম দিনে বাংলাদেশি জাহাজে রকেট হামলার ঘটনা ঘটে। তারপর বন্দরটির আশপাশের এলাকায় বসবাসরত বাংলাদেশি নাগরিকদের সহায়তায় ৩ মার্চ জাহাজে থাকা ২৮ নাবিককে উদ্ধার করা হয়। পরে তাঁদের ইউক্রেনের বাংকারে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। ৯ মার্চ জাহাজটির নাবিক ও প্রকৌশলীরা দেশে ফেরেন।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.