এক্সক্লুসিভ এর সকল সংবাদ

নোটিফিকেশন জারি: কোন কোম্পানির কতো শেয়ার কিনতে হবে দেখে নিন

নোটিফিকেশন জারি: কোন কোম্পানির কতো শেয়ার কিনতে হবে দেখে নিন

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিটি কোম্পানির পরিচালকদের এককভাবে দুই শতাংশ এবং সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণের বাধ্যতাবাধকতা বিগত ৮ বছর ধরেই চলে এসেছে। এরপরেও তালিকাভুক্ত ৪৬ কোম্পানির পরিচালকরা সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণ করতে পারেনি। ৮ বছর পর এই নির্দেশনার সংযোজন, বিয়োজন করে গতকাল নতুন করে নোটিফিকেশন জারি করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

শেয়ারবাজারে পুন:অর্থায়ন: বিনিয়োগকারীরা ৭% সুদে লোন পাবেন

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ারবাজারের ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য আগের দেওয়া ৯০০ কোটি টাকা পুন:অর্থায়ন তহবিলের মেয়াদ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে শেষ হচ্ছে। কিন্তু বিদ্যমান বাজার পরিস্থিতি মন্দা থাকায় এই ৯০০ কোটির মধ্যে ৮৫৬ কোটি পুনরায় বিনিয়োগকারীদের ঋণ হিসেবে দিতে পারবে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)। আগামী তিন বছর ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ অর্থবছর পর্যন্ত দ্বিতীয় বারের মতো পুন:অর্থায়নের

কি হচ্ছে কেয়া কসমেটিকসে?

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ৩০ জুন,২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ডের ঘোষণা দিয়ে আর কোনো খবরই নেই তালিকাভুক্ত কেয়া কসমেটিকসের। ইতিমধ্যে ২০১৯ সমাপ্ত অর্থবছরের তিনটি প্রান্তিক শেষ হলেও কেয়া কসমেটিকসের কাছ থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো প্রান্তিক প্রতিবেদনের চিত্র দেখতে পায়নি বিনিয়োগকারীরা। এমনকি ঘোষিত ডিভিডেন্ড ঝুঁলিয়ে রেখে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) না করে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে রয়েছে

নগদ অর্থের সংকট থেকে বের হতে পারেনি ১৪ ব্যাংক

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৩০ ব্যাংক ২০১৯ সালের প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। আর প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী আমানত প্রবৃদ্ধির চেয়ে ঋণ প্রবৃদ্ধি বেশি হওয়ায় নগদ অর্থের সংকটে রয়েছে এখনও ১৪ ব্যাংক। এদিকে, আমানত প্রবৃদ্ধির চেয়ে ঋণ প্রবৃদ্ধি কম হওয়ায় নগদ অর্থের সংকট থেকে বের হয়ে এসেছে ৭ ব্যাংক। নগদ অর্থের সংকটে থাকা ব্যাংকগুলো হলো-

পুঁজিবাজারে ব্যাংক এক্সপোজার সংশোধন

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: অবশেষে নানা জল্পনা-কল্পনার পর পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ (এক্সপোজার) গণনায় সংশোধন আনতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে এক্সপোজার গণনায় নন-লিস্টেড বা তালিকাভুক্ত নয় এমন কোম্পানিতে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ এক্সপোজারের বাইরে থাকবে। ব্যাংকগুলোর এক্সপোজার গণনায় নতুন নিয়ম প্রণয়ন করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আগামীকাল এ সংক্রান্ত বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার জারি করা হতে পারে বলে

কপারটেকের মাধ্যমে মাঠে নামলো এফআরসি: আটকে গেলো বিনিয়োগকারীদের টাকা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া কপারটেক ইন্ডাষ্ট্রিজ নিয়ে এবার মাঠে নেমেছে ফিন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং কাউন্সিল (এফআরসি)। কোম্পানিটির আর্থিক প্রতিবেদনে অনিয়ম রয়েছে এমন অভিযোগ তুলে আগেই ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। ডিবিএ’র পরামর্শে ডিএসই কপারটেকের আর্থিক প্রতিবেদন খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর এবার অ্যাকশনে রয়েছে এফআরসি। ফিন্যান্সিয়াল রিপোর্টিং আইন তৈরি করার

স্মল ক্যাপ মার্কেটে তালিকাভুক্ত হতে আগ্রহী দুই কোম্পানি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জ (ডিএসই) ছোট এবং মাঝারি আকারের কোম্পানিগুলির বৃদ্ধির সুবিধার্থে স্মল ক্যাপ মার্কেট (এসএমই) প্লাটফরম উদ্বোধন করা হয়েছে। আর এসএমই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে মূলধন বাড়াতে আগ্রহী হয়েছে দুই কোম্পানি। এগুলো হলো- কৃষিবিদ সীড লিমিটেড এবং এনেক্স স্যুটস লিমিটেড হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট। মূলধন উত্তোলন প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে সম্প্রতি উভয় কোম্পানির সঙ্গে

আইপিও কোটা’র অপব্যবহার দূর করতে কমিশনের নজরদারি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) আবেদনের ক্ষেত্রে ফিক্সড প্রাইসে ৪০ শতাংশ এবং বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে ৫০ শতাংশ কোটার সুবিধা পায় ইলিজিবল ইনভেস্টররা। কিন্তু এই কোটা অপব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যে কারণে আইপিও কোটা’র অপব্যবহার দূর করতে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বিশেষ নজরদারি রাখছে বলে কমিশন সূত্রে জানা গেছে। জানা যায়,

এবার আস্থা হারাচ্ছেন বিদেশিরা: ৪১১ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: সাম্প্রতিক পুঁজিবাজারের অবস্থা এমন শোচনীয় পর্যায়ে দাঁড়িয়েছে যে এই বাজারে এখন দেশি-বিদেশি সব ধরণের বিনিয়োগকারীরাই আচ্ছা হারিয়ে ফেলছেন। যে কারণে লোকসান হলেও নিজের হাতে থাকা শেয়ার বিক্রি করে বের হয়ে যাচ্ছেন। এতে সামগ্রিক পুঁজিবাজারে অতিরিক্ত সেল প্রেসার আসছে। ফলশ্রুতিতে মন্দাবাজার ঘুরে দাঁড়ানোর বদলে আরো বেশি মন্দার মুখে পড়ছে। তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, গেল দুই মাস

৪০ টাকার কে অ্যান্ড কিউ’কে ২৬৫ টাকায় খাওয়ানো হলো

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কে অ্যান্ড কিউ অনেক আগে থেকেই গেম্বলিং আইটেম হিসেবে পরিচিত। প্রায় ৩০০ এর কাছাকাছি পি/ই রেশিও’তে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকলেও বিনিয়োগকারীদের সেদিকে ভ্রুক্ষেপ ছিলো না। মূল হোতাদের টার্গেট ছিলো একীভূতকরণের নিউজ আসার আগ পর্যন্ত যত বাড়ানো যায়। অবশেষে ৪০ টাকার কে অ্যান্ড কিউ গিয়ে ঠেকলো ২৬৫ টাকায়। আজকে সাধারণ

Top